1. samudrakantha@gmail.com : সম্পাদক : সম্পাদক ও প্রকাশক
  2. aimrashed20@gmail.com : Amirul Islam Rashed : Amirul Islam Rashed

খরুলিয়াতে যাকাতের টাকা কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ!

  • Update Time : বুধবার, ২৭ এপ্রিল, ২০২২
  • ৫২২ Time View
নিজস্ব প্রতিনিধি ::
কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ডে একটি অমানবিক ঘটনা ঘটেছে। অসহায় ও হতদরিদ্র নারীদের জন্য আসা চার হাজার টাকা জনপ্রতি বিতরন পর্বর্তী দুই হাজার টাকা করে কেড়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। ঈদ মৌসুম কে সামনে রেখে উক্ত ওয়ার্ডের প্রায় দুই শত পঞ্চাশ পরিবারের জন্য জনপ্রতি চার হাজার টাকা করে বরাধ্য দেয় কথিত এক এনজিও। ফর্মালিটি রক্ষার্থে ভোক্তভোগীদের হাতে চার হাজার টাকা করে তুলে দেন উপস্থিত কয়েকজন অতিথি। কিন্তু কথিত এনজিও কর্মীরা স্থান ত্যাগ করার সাথে সাথে শুরু হয় টাকা কেড়ে নেওয়ার ঘটনা।
বেশ কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানান, কোন এনজিও বা সংস্থা হতে টাকা এসেছে তা কাউকে বোঝতে দেওয়া হয়নি। ভোক্তাদের যে কার্ড দেওয়া হয়েছিল তাতেও নাম ছিলনা। টাকা দেওয়ার সময় সেই কার্ড আবার ফেরত নেন সংশ্লিষ্টরা। টাকা দেওয়ার সময় কোন প্রকার ফটোসেশন করেনি বা কাউকে করতে দেয়নি তারা। বিষয়টা নিয়ে ধূয়াশা কাজ করছে এলাকায়। কোন এনজিও দিল না কারো ব্যক্তিগত ফান্ডের টাকা দিল কিছুই পরিষ্কার না। ঘটনাটি জানাজানি হওয়ার পর এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। আজ ২৭ এপ্রিল বিকেলে ভোক্তভোগীরা ঝাড়ু মিছিল করতে দেখা গিয়েছে।
বেশ কয়েকজন ভোক্তভোগী অসহায় নারীদের দাবি,  এনজিওর নামে তাদের ৪ হাজার টাকা করে অনুদান দেওয়া হয় । নেতৃত্বে ছিলেন ৮ নং ওয়ার্ডের আব্দু রশিদ মেম্বার সাথে ছিলেন শফিক নামে এক এনজিও কর্মী। খরুলিয়া ঘাটপাড়া একটি নূরানি মাদরাসায় গতকাল বিকেল ৩টার দিকে বেশ কয়েকজন বাহিরের লোকজনের উপস্থিতিতে সবার হাতে হাতে চার হাজার টাকা প্রদান করে। কিন্তু, বাহিরের লোকজন স্থান ত্যাগ করার সাথে সাথে উক্ত নূরানি মাদরাসা গেইট বন্ধ করে দিয়ে একই এলাকার চিহ্নিত কিছু লোকজন দুই হাজার টাকা করে জোরপূর্বক কেড়ে নেই।
ভোক্তভোগীরা উক্ত ঘটনার সুষ্ঠু তদন্দপূর্বক দোষীদের আইনের আওতায় আনতে জোর দাবি জানিয়েছেন। এবং অসহায় হত দরিদ্রদের হক দুই হাজার টাকা ফেরত দেওয়ার ব্যবস্থা করতে প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন।
সরেজমিনে জানা যায়, ভোক্তভোগীরা আজ ২৭ এপ্রিল(বোধবার) সকাল ১১টার সময় একই স্থানে ঝড়ো হয়ে প্রতিবাদ করে। যার বেশ কয়েকটি ভিডিও চিত্র হাতে রয়েছে। তারা জানায়, স্থানীয় মেম্বার এর নেতৃত্বে তার ছোট ভাই ও এলাকার চিহ্নিত ইয়াবা কারবারি এবং মার্ডার মামলার আসামি সহ আরো কয়েকজন ভোক্তভোগীদের কাছ থেকে ২ হাজার টাকা করে কেড়ে নেই।
এদিকে, অভিযোগের বিষয় অস্বীকার করে উক্ত ওয়ার্ডের মেম্বার আব্দু রশিদ জানান, ওনাদের বন্ধু বান্ধবের সম্মিলিত একটি ফাউন্ড হতে প্রতি বছর এভাবে টাকা দিয়ে থাকে। ওনারা জনপ্রতি ১ হাজার থেকে ২হাজার টাকা করে বিতরন করেছেন। ২ হাজার টাকা কেড়ে নেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, তার প্রতিপক্ষদের সাজানো ঘটনা। এসব সাজানো ঘটনায় কর্ণপাত না করতে অনুরোধও জানান তিনি। কোন ফাউন্ডেশন হতে টাকা বিতরর করেছে তার কোন চিত্র আছে কি না প্রশ্ন করলে প্রতি উত্তরে তিনি বিষয়টি এড়িয়ে যান
উক্ত বিষয়ে ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতান মুঠোফোনে জানান, এসব কিসের টাকা, কোত্তেকে আসছে, কে দিয়েছে আমি কিচ্ছু জানিনা। যে ওয়ার্ডে ঘটনা ঘটেছে সে ওয়ার্ডের মেম্বার অবগত থাকবে।
এ বিষয়ে জানতে কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তার ব্যবহৃত সরকারি নাম্বারে অনেকবার ফোন দিয়েও রিসিভ না করায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

Share on your Facebook

Leave a Reply

Your email address will not be published.

More News .....

© All rights reserved Samudrakantha © 2019

Site Customized By Shahi Kamran